বিমান সংস্থা

ভ্যাকসিন বিতরণে ইউনিসেফের সঙ্গে কাজ করবে এমিরেটস এয়ারলাইন্স

করোনা মহামারি মোকাবিলায় ইউনিসেফের দেওয়া ভ্যাকসিন, অত্যাবশ্যকীয় ওষুধপত্র,মেডিক্যাল যন্ত্রপাতিসহ জরুরি সামগ্রী সর্বাধিক অগ্রাধিকার দিয়ে পরিবহন করবে এমিরেটসের কার্গো পরিবহন বিভাগ এমিরেটস স্কাইকার্গো। মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) এ বিষয়ে ইউনিসেফের সঙ্গে একটি চুক্তি সম্পাদনের ঘোষণা দিয়েছে এমিরেটস স্কাইকার্গো।

এমিরেটস জানিয়েছে, ইউনিসেফের নেতৃত্বে পরিচালিত ‘হিউম্যানিটারিয়ান এয়ার ফ্রেইট ইনিশিয়েটিভ’ এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে এমিরেটস স্কাইকার্গোসহ বেশ কয়েকটি সংস্থার, যারা সম্মিলিতভাবে বিশ্বের ১০০টির বেশি মার্কেটে অত্যাবশ্যকীয় সামগ্রী পরিবহন করতে সক্ষম। ইউনিসেফের এই উদ্যোগের উদ্দেশ্য হলো— কোভ্যাক্স কর্মসূচিতে সহায়তা প্রদান করা। কোভ্যাক্স একটি বৈশ্বিক উদ্যোগ, যার লক্ষ্য হলো— সব দেশের জন্য করোনা ভ্যাকসিনের ন্যায়সঙ্গত প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে প্রচেষ্টা চালানো।

এয়ার কার্গো সেক্টরে ভ্যাকসিনসহ বিভিন্ন তাপ সংবেদনশীল ওষুধপত্র পরিবহন করে এমিরেটস স্কাইকার্গো। ৬টি মহাদেশে সংস্থাটির বিস্তৃত নেটওয়ার্ক, সুপরিসর আধুনিক উড়োজাহাজের বহর, দুবাই হাবে ভ্যাকসিন ও ওষুধপত্র সুরক্ষিতভাবে সংরক্ষণ ও পরিবহনের জন্য ইইউ জিডিপি সনদপ্রাপ্ত স্টেট-অব-দ্য-আর্ট অবকাঠামো রয়েছে।

এমিরেটস আরও জানায়, ২০২০ সালের অক্টোবর মাসে এমিরেটস স্কাইকার্গো কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন সংরক্ষণ ও পরিবহনের জন্য বিশ্বের বৃহত্তম ইইউ জিডিপি সনদপ্রাপ্ত এয়ার সাইড ডিস্ট্রিবিউশন হাব প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেয়। উন্নয়নশীল দেশগুলোতে দ্রুততম সময়ে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে এমিরেটস স্কাইকার্গো চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে একটি কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্স প্রতিষ্ঠা করে। এই অ্যালায়েন্সের অপর সদস্যরা হলো— ডিপি ওয়ার্ল্ড, দুবাই এয়ারপোর্টস এবং ইন্টারন্যাশনাল হিম্যানিটারিয়ান সিটি। এমিরেটস স্কাইকার্গো বর্তমানে কার্গো ও যাত্রীবাহী উড়োজাহাজের সাহায্যে বাংলাদেশে নিয়মিত কার্গো পরিবহন সেবা প্রদান করছে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close